ধনীলোক আর গরিবলোকের চিন্তার পার্থক্য গুলো জেনে নিন

কোনো মানুষকে গরিব তার আর্থিক অবস্থা করে না।কারো কাছে টাকা নেই কারো পরার জন্ন্য ভালো পোষাক নেই, এইসব কিছু কাউকে গরিব করতে পারে না।বরং মানুষের চিন্তার দ্বারায় মানুষ ধনী ও গরীব হয়।আমি এমন ও ধনীলোককে দেখেছি যারা নিজের খাবা কাউকে দেয়না বরং নিজের খেতে পচ্ছন্দ করে।

আর আমি রাস্তায় বসে থাকা এমনও মানুষ দেখেছি যে একটা রুটি পেলে কুকুরের সাথে ভাগাভাগি করে খায়।তাই আপনি এখানে কাকে ধনী বলবেন, সব সময় নিজের মনকে বড় রাখুন। যদি মন ছোট থাকে তাহলে সব কিছু থাকার পরেও আপনি খুশিতে থাকতে পারবেন না।আর যদি আপনার মন বড় হয় তাহলে আপনার কাছে কিছু কম থাকলেও আপনি হাজারো সুখে থাকতে পারবেন।

আজ আমি আপনাদের এমন কিছু কথা বলবো যা আপনাকে কখনো ধনী হতে দিবে না।

সবার প্রথমে কারো স্টান্ডার নিয়ে কখনো কথা বলবেন না।এই দুনিয়ায় যত লোক সবাই তাদের জীবনের গল্পে রাজা। আপনি কিছুই জানেন না যে তার জীবনে কি চলছে আর কিভাবে সে সব কিছুকে সামলে এগিয়ে যাচ্ছে।আর আপনি যদি তার মাসিক ইনকাম ও শরীরের পোষাক দিয়ে বিবেচনা করেন যে সে আপনার থেকে কতটা পিছিয়ে আছে তাহলে আমি মনে করি আপনার চিন্তা গুলোকে পরিবর্তন করার দরকার আছে।

আমাদের যদি কেউ বলে তুমিতো কোনো ইনকাম ই করো না তাহলে জীবনটা কিভাবে কাটাবে বা বাজারের কোনো জিনিস আপনার পছন্দ হলো তখন সেটা কিনার জন্য আপনর কাছে পযাপ্ত। টাকা নেই তখন নিজেকে অনেক দূর্বল মনে হয়।এমই সব মানুষের ভিতরে কোনো না কোনো ইচ্ছে অপূর্ণ আছে তাই কউকে কখনো যাচ করবেন না৷ আর যদি কেউ আপনাকে বার বার এটা দেখায় যে আপনার থেকে তার কাছে বেশি কিছু আছে তাহলে ওই ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন।

এরপর যাদের চিন্তা সব থেকে ছোট হয় তারা সব কিছুকে বাড়িয়ে বলতে ও দেখাতে পছন্দ করে।যেমন এরা কোনো কিছু অন্যদের এমন ভাবে দোখাবে যে অন্য কেউ সেটা কিনতেই পারবে না।আমাদের চারপাশে এমন কিছু লোক থাকে কেবল তারা সব সময় বলতে থাকে তাদের জীবনের কথা,তাদের বন্ধুদের কথা, তারা কোথায় ঘরতে গেয়েছিল তার কাছে কত টাকা আছে এইসব কিছু তারা বাড়িয়ে বলে চর আমার মনে হয় এরা জীবনে কখনো কোনো কিছু করতে পারবে না।

এরপর হলো ওভাররিয়েক্ট করা প্রতিটি মানুষ জীববে সফল তখনই হবে যখন তারা প্রতিটি কথার কারণকে জানার ও বুঝার চেষ্টা করবে।কিছু জেবল সামনের জনের খারাপ ব্যবহারটা দেখে কিন্ত সে খারাপ ব্যবহার কেন করলো সেই কারণ জানতে চায় না।তাই যদি আপনার চারপাশে এমন কিছু হয় তাহলে রাগ না দেখিয়ে কারণ জানার চেষ্টা করুন। আর এটা আপনার পারসোনালিটিকে আরো সুন্দর করে তুলবে।এরপর আপনার মাথা থেকে এটা বের করে ফেলুন লোকে কি বলবে আর লোকে কি ভাববে।যদি আপনি লোকের কথা ভাবেবলন তাহলে নিজের কথা কখনো ভাবতে পারবেন না।

যেমন কেউ কিছু শিখতে চায় কিন্তু বয়স বেশি হয়ে গেছে বলে সে সেটা শিখতে চায়না।নিজের সপ্নের কাজ তো সবাই করতে চায় কিন্তু সেটা অন্য কাউকে বলতে লজ্জা পায়।কিন্তু আমার মনে হয় কারো কথা না ভোবে কারো কথা না চিন্তা করে আপনার পছন্দের কাজটা করা উচিত।লোক আপনাকে কেবল ততটাই বলবে সে যতটা জানে।

আর সবশেষে মানুষকে যে জিনিসটা কখনো বড় হতে দেয়না সেটা হলো টিভি ও সোসালমিডিয়ায় নিজে সমস্ত সময়কে নষ্ট করা।অর্ধেকের বেশি লোকতো এই কারণেই ব্যকার কারণ তাদের কাজ করতে ভালো লাগেনা।কিছুটা সময় নিজের সাথে কাটিয়ে কিছু করার প্লান তাদের ভালো লাগেনা।আর করবেই বা কিভাবে এদের হাতে তো মোবাইল আছে, এদের কাজ হলো লোকের ফাল্তু পোস্ট কমেন্ট আর লাইক করা আর ফাল্তু চ্যাট করে সময় নষ্ট করা।আপনি কি জানেন যত সফল লোক আছে তাদের সবার মধ্যে একটা কমোন জিনিস আছে সেটা হলো ফোকাস  এরা ফাল্তু কোনো কাজে সময়কে নষ্ট করে না কারণ এরা জানে যে টাকা হয়তো ফিরে পাওয়া যায় কিন্তু সময় কখনো ফিরে পাওয়া যায় না। তাই আপনি ভালোভাবে ভেবে দেখুন আপনার সময়টা কিভাবে কাটাতো চান,

আমি আশা করি আজকের লেখা গুলো আপনর চিন্তা গুলোকে একটু পরিবর্তন করবে।

যদি লেখা গুলো ভালো লাগে তাহলে আপনি শেয়ার করে সবাইকে পড়ার মতো সুযোগ করে দিন

#ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *